প্রক্টরকে পদত্যাগ করতে ভাসানী বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের ৭২ ঘন্টার আল্টিমেটাম


০৭:৩১ পিএম, ১৮ নভেম্বর ২০২১
প্রক্টরকে পদত্যাগ করতে ভাসানী বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের ৭২ ঘন্টার আল্টিমেটাম - Ekotar Kantho
ভাসানী বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের বিক্ষোভ মিছিল

একতার কণ্ঠঃ টাঙ্গাইলের মাওলানা ভাসানী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (মাভাবিপ্রবি) প্রক্টরের পদত্যাগ দাবিতে ৭২ ঘন্টার আল্টিমেটাম দিয়ে বৃহস্পতিবার(১৮ নভেম্বর) সকালে বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশ করেছে মাওলানা ভাসানী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা।

ছাত্রলীগের প্রতিবাদ সমাবেশটি জননেতা আব্দুল মান্নান হল থেকে শুরু হয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের ২য় গেট থেকে ১ম গেট হয়ে সম্পূর্ণ ক্যাম্পাস প্রদক্ষিন করে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবনের সামনে এসে শেষ হয়।

ছাত্রলীগ নেতারা প্রতিবাদ সমাবেশে অভিযোগ করেন যে, গতকাল গণ অধিকার পরিষদ কর্তৃক মাওলানা ভাসানী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রলীগ নেতাকর্মী ও সাধারণ শিক্ষার্থীদের উপর আক্রমণ চালানো হয়। এতে ৭ জন শিক্ষার্থী ও ১ জন ছাত্রলীগ কর্মী গুরুতর আহত হয়। গুরুতর আহত অবস্থায় ছাত্রলীগ কর্মীকে বাঁচাতে বিশ্ববিদ্যালয়ের অ্যাম্বুলেন্সে যোগাযোগ করার পরও প্রায় ৪০ মিনিট পরে অ্যাম্বুলেন্স আসে। ফলে তার অবস্থার আরও অবনতি হয়। পরে তাকে টাঙ্গাইল সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। তারা আরও অভিযোগ করেন যে, বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর তার নিজ কক্ষে বসে থাকলেও তিনি ছাত্রদের বাঁচাতে এগিয়ে আসেননি। পুলিশ লাঠিচার্জ করার পরও তিনি কোন শিক্ষার্থীর খোঁজ খবর রাখেননি। তার কাজই শিক্ষার্থীদের নিরাপত্তা ও ক্যাম্পাসের নিরাপত্তার বিষয়ে খেয়াল রাখা। তিনি তা না করায় প্রক্টর হিসেবে ব্যর্থ হয়েছেন। তাই তাকে পদত্যাগ করতে ৭২ ঘন্টার আল্টিমেটাম দেওয়া হয়েছে। প্রক্টর পদত্যাগ না করলে বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা ৭২ ঘন্টা পরে কঠোর আন্দোলনের হুঁশিয়ারি দিয়েছেন।

এই ব্যাপারে বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক নিবিড় পাল বলেন, ” গতকাল আমাদের বিশ্ববিদ্যালয়ে যে বিশৃঙ্খলার সৃষ্টি হয়েছিল, আমাদের সাথে গন অধিকার পরিষদের ধাওয়া ও পাল্টা ধাওয়া সৃষ্টি হয়েছিল। বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ও ছাত্রলীগ কর্মীরা যে আহত হয়েছিল, বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টরের সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করলেও তিনি একবারের জন্যেও আমাদের খোঁজ খবর নেননি। প্রক্টর স্যার আমাদের নিরাপত্তা দিতে সম্পূর্ণরুপে ব্যর্থ হয়েছেন। তিনি ঘটনাস্থলে আসেন নি এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের রসায়ন বিভাগের শিক্ষার্থী রানা বাপ্পি দেখার জন্য হাসপাতালে তিনি যাননি। আমরা এমন প্রক্টর চাইনা। সে নিরাপত্তা দিতে ব্যর্থ হয়েছে। আমরা ৭২ ঘন্টার মধ্যে তার পদত্যাগ দাবি জানাচ্ছি। ”

ছাত্রলীগ নেতা মানিল শীল বলেন, ” নুরুল হক নুরু সামনে নির্বাচনকে কেন্দ্র করে যে ইস্যু হতে চায়, বার বার সংবাদ মাধ্যমে আসতে চায় তারই প্রমান দিয়েছে। তার প্রতিবাদে আমরা ছাত্রলীগ মাঠে আছি। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর বিরুদ্ধে যে কোন অপশক্তির বিরুদ্ধে আমরা মাভাবিপ্রবি ছত্রলীগ সবসময় সোচ্চার। ”

বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগ নেতা নাজিম রুপক বলেন, “মজলুম জননেতা মাওলানা আব্দুল হামিদ খান ভাসানী সাহেবের ৪৫ তম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে দল মত নির্বিশেষে সকল রাজনৈতিক সংগঠন ও সাধারণ জনগণ মাজারস্থলে ফুল দিতে আসেন। সে সময় অবৈধ ও লাইসেন্সবিহীন সংগঠন নুরু  আমাদের মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নামে কুরুচিপূর্ণ ও দেশবিরোধী স্লোগান দেওয়ায় মাভাবিপ্রবি ছাত্রলীগ তা প্রতিহত করে।সে সময় নুরু  বাহিনী আমাদের এক ছোট ভাইকে মেরে গুরুতর আহত করে।আমরা মাভাবিপ্রবি ছাত্রলীগ নুরু ও তার সংগঠনকে টাংগাইল তথা সারাদেশে ছাত্রলীগের আদর্শিক কর্মী সকল অবস্থায় প্রতিহত করব।”

এই ব্যাপারে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর ড. মীর মোঃ মোজাম্মেল হক বলেন, ” আমার এই ব্যাপারে কিছু জানা নেই।


পাঠকের মতামত

-মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

নিউজটি শেয়ার করুন

কপিরাইট © ২০২২ একতার কণ্ঠ এর সকল স্বত্ব সংরক্ষিত। এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি ।