ভূঞাপুরে দুই টাকা মজুরি পাওয়া ‘মমতা রানী’র হাতে মেয়রের উপহার


০৭:৪৮ পিএম, ৪ এপ্রিল ২০২৩
ভূঞাপুরে দুই টাকা মজুরি পাওয়া ‘মমতা রানী’র হাতে মেয়রের উপহার - Ekotar Kantho

একতার কণ্ঠঃ প্রতি পিস প্লাস্টিকের ব্যাগ সেলাই করে মজুরি পেতেন দুই টাকা। পুরনো, ভাঙা মেশিন দিয়েই এই কাজ করতেন তিনি। ফলে ঠিকমতো সেলাইয়ের কাজ করতে পারতেন না। এই অবস্থা থেকে উত্তরণের জন্য একটি সেলাই মেশিন সাহায্য চেয়েছিলেন হতদরিদ্র মমতা রাণী শীল। টাঙ্গাইলের ভূঞাপুর পৌর শহরের শিয়ালকোলস্থ ফায়ার সার্ভিসের পাশে নির্মিত প্রধানমন্ত্রীর দেওয়া উপহারের ঘরে মাসখানেক যাবত স্বামী ও সন্তান নিয়ে বসবাস করছেস তিনি।

সম্প্রতি একটি টেলিভিশনে প্রধানমন্ত্রীর উপহারের ঘরে থাকার অনুভতি বিষয়ক স্বাক্ষাতকার দেওয়ার সময় একটি সেলাই মেশিন চান মমতা রাণী। তার ওই ভিডিও বক্তব্য সামাজিক মাধ্যমে পোস্ট দিলে দ্রুত সময়ের মধ্যে ভাইরাল হয়।

এরপর মমতা রাণী সেলাই মেশিন চাওয়ার সেই পোস্টটি উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও পৌর মেয়র বীর মুক্তিযোদ্ধা মাসুদুল হক মাসুদের নজরে আসে। তারপর মেয়র মাসুদুল হক মাসুদ সংবাদকর্মী আল-আমিনের সাথে যোগাযোগ করে মমতা রাণীর জন্য সেলাই মেশিনের ব্যবস্থা করেন তিনি। সেলাই মেশিনটি মঙ্গলবার (৪ এপ্রিল) দুপুরে মেয়রের পক্ষ থেকে হস্তান্তর করে আল-আমিন শোভন।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন- ভূঞাপুর প্রেসক্লাবের সভাপতি শাহ্ আলম প্রামাণিক, সাবেক সভাপতি আসাদুল ইসলাম বাবুল, সাবেক সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক আখতার হোসেন খান, সাংগঠনিক সম্পাদক শফিকুল ইসলাম শাহীন, দপ্তর ও পাঠাগার সম্পাদক ফরমান শেখ, কার্যকরি সদস্য আল-আমিন শোভন, মাহমুদুল হাসান, সদস্য খন্দকার মাসুদ রানা। এছাড়াও আশ্রয় প্রকল্পে থাকা বাসিন্দারাও উপস্থিত ছিলেন।

নতুন সেলাই মেশিন পেয়ে মমতা রাণী শীল জানান, দীর্ঘদিন ধরে আমি পুরাতন ও ভাঙা সেলাই মেশিন দিয়ে বাজারের ব্যাগ তৈরি করতাম এবং মহাজন পারিশ্রমিক হিসেবে প্রতি ব্যাগে ১-২ টা করে মজুরি দিতো। এনিয়ে আনন্দ টিভির এক সাংবাদিক আমার কষ্টের কথা শুনে ভিডিও নেন এবং ফেসবুকে পোস্ট দেয়। পরে মেয়র মহোদয় পোস্টটি দেখে আমাকে একটি নতুন সেলাই মেশিন উপহার দিয়েছেন। এতে আমি অনেক আনন্দিত।

সংবাদকর্মী আল-আমিন শোভন জানান, আশ্রয়ণ প্রকল্পের ঘরের নিউজ করতে গিয়ে হতদরিদ্র মমতা রাণীর সাথে কথা হয়। তিনি জানায় পুরাতন ও ভাঙা সেলাই মেশিন দিয়ে ২ টার মজুরিতে সেলাইয়ের কাজ করে কোনো রকমভাবে সংসার চালাচ্ছেন। অর্থাভাব নতুন মেশিন কিনতে পারছেন না। পরে তার একটি ভিডিও ফেসবুকে পোস্ট দেয়ার একদিন পর মেয়র মাসুদুল হক মাসুদ মহোদয়ের নজরে আসলে তাকে নতুন একটি সেলাইসহ অন্যান্য সামগ্রী উপহার প্রদান করেন।


পাঠকের মতামত

-মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

নিউজটি শেয়ার করুন

কপিরাইট © ২০২২ একতার কণ্ঠ এর সকল স্বত্ব সংরক্ষিত। এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি ।