/ মূলপাতা / টাঙ্গাইল
অনুমোদন ছাড়াই টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতাল চত্বরে বাণিজ্যিক ভবন নির্মাণ - Ekotar Kantho

অনুমোদন ছাড়াই টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতাল চত্বরে বাণিজ্যিক ভবন নির্মাণ

একতার কণ্ঠঃ টাঙ্গাইলের ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতাল চত্বরে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের সম্মতি ছাড়াই দোকান নির্মাণে জায়গা বরাদ্দ দিয়েছে হাসপাতাল ব্যবস্থাপনা কমিটি। ইতিমধ্যে একতলা ভবনের নির্মাণকাজ শেষ হয়েছে। শেষ মুহূর্তে পলেস্তারার কাজ চলছে।

হাসপাতাল চত্বরে দোকান নির্মাণে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর থেকেও অনুমোদন মেলেনি। এরপরও ব্যবস্থাপনা কমিটির সভাপতি সংসদ সদস্য আলহাজ্ব ছানোয়ার হোসেনসহ কমিটির প্রভাবশালী সদস্যরা জায়গা বরাদ্দ দিয়েছেন বলে অভিযোগ উঠেছে।

হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ বলছে, হাসপাতাল চত্বরে দোকান নির্মাণে জায়গা বরাদ্দ দিতে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অনুমতি দেননি। এরপরও ব্যবস্থাপনা কমিটি অনুমতি দিয়েছে। হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক সভার কার্যবিবরণীতে স্বাক্ষরও করেননি।

তবে হাসপাতাল ব্যবস্থাপনা কমিটির সভাপতি সংসদ সদস্য ছানোয়ার হোসেন বলেন, ব্যবস্থাপনা কমিটির সভায় রেজল্যুশন করে বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। বরাদ্দ দিতে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালকের অনুমোদন লাগে না। এটা ব্যবস্থাপনা কমিটির এখতিয়ার।

হাসপাতাল সূত্র জানায়, সাড়ে ২৬ একর জমির ওপর নির্মিত টাঙ্গাইল ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতাল চত্বরেই শেখ হাসিনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ১৫ তলা ভবন নির্মাণ করা হয়েছে। এ ছাড়া হাসপাতাল চত্বরে মেডিকেল অ্যাসিস্ট্যান্ট ট্রেনিং স্কুল, নার্সিং ইনস্টিটিউটসহ স্বাস্থ্য বিভাগের বিভিন্ন স্থাপনা আছে।

ব্যবস্থাপনা কমিটির একাধিক সদস্য জানান, শিলা আনসারী নামের এক ব্যবসায়ী হাসপাতাল চত্বরে জায়গা বরাদ্দ চেয়ে ব্যবস্থাপনা কমিটির কাছে একটি আবেদন করেন। তিনি সেখানে এজেন্ট ব্যাংকের একটি শাখা, এটিএম বুথ ও স্বাস্থ্য–সম্পর্কিত পণ্যের দোকান করবেন বলে আবেদনে উল্লেখ করেন। হাসপাতালের উপপরিচালক বিষয়টি স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালককে জানান। কিন্তু মহাপরিচালক হাসপাতালের ভেতরে দোকান করতে জায়গা বরাদ্দের অনুমতি দেননি। এরপরও গত ১৩ নভেম্বর এক সভায় শিলা আনসারীর নামে ৭৫০ বর্গফুট জায়গা বরাদ্দ দেন কমিটির সদস্যরা।

বরাদ্দের চুক্তিপত্রে দেখা যায়, বরাদ্দ পাওয়া ব্যক্তিকে ১১ লাখ ২৫ হাজার টাকার মধ্যে পাকা স্থাপনা নির্মাণ করে নিতে বলা হয়েছে। ১২ বছর মেয়াদের চুক্তিতে মাসিক ভাড়া ধরা হয়েছে ২০ হাজার টাকা। তিন বছর পরপর শতকরা ১০ ভাগ ভাড়া বাড়ানোর কথা উল্লেখ আছে। ভাড়ার শতকরা ১০ ভাগ হাসপাতাল মসজিদের উন্নয়নে, ৩০ ভাগ রোগী কল্যাণ সমিতিতে, ২০ ভাগ হাসপাতাল কর্মচারী সমিতিতে ও ৪০ ভাগ হাসপাতালের উন্নয়নে ব্যয় করার কথা উল্লেখ করা হয়েছে।

হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা. খন্দকার সাদিকুর রহমান বলেন, ব্যবস্থাপনা কমিটির সভায় দোকানের জায়গা বরাদ্দ দেওয়ার প্রস্তাব এসেছিল। তখন তিনি তাঁদের জানিয়ে দেন, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালকের অনুমতি ছাড়া জায়গা বরাদ্দ দেওয়া বিধিসম্মত হবে না। এরপরও তাঁরা বরাদ্দ দিয়েছেন। এ জন্য তিনি সভার কার্যবিবরণীতে স্বাক্ষর করেননি।

ব্যবস্থাপনা কমিটির একাধিক সদস্য ও হাসপাতাল-সংশ্লিষ্ট অন্তত পাঁচজন অভিযোগ করেছেন, ওই জায়গা বরাদ্দ দিতে কমিটির কয়েকজন প্রভাবশালী সদস্যকে বড় অঙ্কের উৎকোচ দেওয়া হয়েছে। এ জন্য ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের অনুমোদন না থাকলেও তাঁরা বিধিবহির্ভূতভাবে জায়গা বরাদ্দ দিয়েছেন।

ব্যবস্থাপনা কমিটির সদস্য ও সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শাহজাহান আনসারী বলেন, এ বিষয়ে আমি কিছুই জানি না।

আরেক সদস্য টাঙ্গাইল পৌরসভার কাউন্সিলর আসাদুজ্জামান বলেন, বরাদ্দের ব্যাপারে আমি কিছু জানি না। দিয়েছেন এমপি ও মেয়র সাহেব।

বৈধভাবে জায়গা বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে বলে দাবি করে মেয়র এস.এস সিরাজুল হক আলমগীর বলেন, সবার উপস্থিতিতে রেজল্যুশন করা হয়েছে। বরাদ্দের জায়গা বুঝিয়ে দেওয়ার সময় হাসপাতালের উপ-পরিচালক, গণপূর্ত বিভাগের প্রতিনিধি উপস্থিত ছিলেন। উৎকোচ গ্রহণের বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, কেউ নিয়েছেন কি না, আমি জানি না।

সর্বশেষ আপডেটঃ ১৩. ফেব্রুয়ারী ২০২৪ ০৩:৩৮:এএম ২ সপ্তাহ আগে
টাঙ্গাইল জেলা সাংবাদিক ফোরাম ঢাকার সভাপতি বাদশা, সম্পাদক মাহমুদ - Ekotar Kantho

টাঙ্গাইল জেলা সাংবাদিক ফোরাম ঢাকার সভাপতি বাদশা, সম্পাদক মাহমুদ

একতার কণ্ঠঃ টাঙ্গাইল জেলা সাংবাদিক ফোরাম, ঢাকা’র ২২ সদস্যের নতুন কমিটি গঠন করা হয়েছে। নতুন এই কমিটির সভাপতি নির্বাচিত হয়েছেন সাখাওয়াত হোসেন বাদশা এবং সাধারণ সম্পাদক খন্দকার আছাব মাহমুদ।

সোমবার (১২ ফেব্রুয়ারি) সকালে জাতীয় প্রেসক্লাবের মাওলানা আকরম খাঁ হলে খান মোহাম্মদ সালেকের সভাপতিত্বে টাঙ্গাইল জেলা সাংবাদিক ফোরামের দ্বিবার্ষিক সাধারণ সভা শেষে এই কমিটি গঠন করা হয়। সাধারণ সভায় সর্বসম্মতিক্রমে ২০২৪-২৬ মেয়াদের জন্য সাখাওয়াত হোসেন বাদশাকে সভাপতি এবং খন্দকার আছাব মাহমুদকে সাধারণ সম্পাদক ঘোষণা করেন সংগঠনটির সাবেক সভাপতি রফিকুল ইসলাম রতন।

কমিটির অন্যান্য পদে নির্বাচিতরা হলেন- সিনিয়র সহ-সভাপতি জাহাঙ্গীর ফিরোজ, সহ-সভাপতি শেখ এনামুল হক, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক আনিসুর রহমান খান ও শাহনাজ পারভীন এলিস, কোষাধ্যক্ষ ডি এম অমর, সাংগঠনিক সম্পাদক তৌফিক অপু, প্রচার সম্পাদক ওয়ালিদ খান, দপ্তর সম্পাদক- হাফিজুর রহমান, নারী বিষয়ক সম্পাদক নাজনীন আকতার লাকী।

কার্যনির্বাহী সদস্য পদে নির্বাচিত হয়েছেন ১১ জন। তারা হলেন- আশরাফ সরকার, ফেরদৌস সালাম, ড. হারুনুর রশিদ, একাব্বর আলী, আনিসুর রহমান, রেজাউল করিম, তারেক সালমান, আতিকুর রহমান, নুরুল হুদা, মুশফিক খান ও আবু মো. মাচানী।

এছাড়াও পদাধিকার বলে সদ্য বিদায়ী সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক কমিটির কার্যনির্বাহী সদস্য হিসেবে গণ্য হবেন।

সাধারণ সভায় ফোরামের সাবেক সভাপতি এবং সাধারণ সম্পাদকদের সমন্বয়ে একটি উপদেষ্টা পরিষদ গঠন করা হয়। উপদেষ্টা পরিষদে রয়েছেন- রফিকুল ইসলাম রতন, গাফফার মাহমুদ, মো. আশরাফ আলী, বীর মুক্তিযোদ্ধা তালুকদার হারুন, জীবন ইসলাম, জামাল উদ্দিন জামাল ও ফিরোজ মান্না।

এই উপদেষ্টা পরিষদের সদস্যরা টাঙ্গাইল জেলা সাংবাদিক ফোরাম, ঢাকা’র নির্বাহী কমিটির সঙ্গে যৌথভাবে দায়িত্ব পালন করবেন।

সর্বশেষ আপডেটঃ ১৩. ফেব্রুয়ারী ২০২৪ ০৩:৩৬:এএম ২ সপ্তাহ আগে
মেডিকেল ভর্তি পরীক্ষায় মেধা তালিকায় নবম টাঙ্গাইলের ইরাম - Ekotar Kantho

মেডিকেল ভর্তি পরীক্ষায় মেধা তালিকায় নবম টাঙ্গাইলের ইরাম

একতার কণ্ঠঃ এমবিবিএস ভর্তি পরীক্ষার ফলাফলের জাতীয় মেধাক্রমে সারা দেশে নবম হয়েছেন টাঙ্গাইলের ছেলে ইরাম আহনাফ খোশনবীশ (১৮) । ভর্তি পরীক্ষায় তিনি ৮৯ দশমিক ৭৫ নম্বর পেয়ে নবম স্থান অর্জন করতে সক্ষম হন।

ইরাম আহনাফ খোশনবীশ টাঙ্গাইল পৌরসভার দক্ষিণ থানাপাড়ার ব্যাংকার আতিকুর রহমান খোশনবীশ ও ব্যাংকার ফরিদা ইয়াসমিন দম্পতির একমাত্র সন্তান। তিনি প্রয়াত ব্যাংকার যুদ্ধাহত বীরমুক্তিযোদ্ধা আনিসুর রহমান খোশনবীশের নাতি।

ইরাম আহনাফ খোশনবীশ ২০২১ সালে টাঙ্গাইল বিন্দুবাসিনী সরকারি বালক উচ্চ বিদ্যালয় থেকে থেকে এসএসসি পাস করেন। ২০২৩ সালে ঢাকার নটরডেম কলেজ থেকে উচ্চমাধ্যমিক শেষ করেন। তার এমন সাফল্যে পরিবার, এলাকাবাসী ও স্বজনদের মাঝে আনন্দঘন পরিবেশ বিরাজ করছে।

এমবিবিএস ভর্তি পরীক্ষায় নবম স্থান অধিকারী ইরাম বলেন, এ এক স্বপ্নের মতো অনুভূতি যা ভাষায় প্রকাশ করার মতো নয়। সবাই আমার জন্য দোয়া করবেন।

একমাত্র সন্তান ইরাম এর জন্য দোয়া চেয়েছেন পিতা আতিকুর রহমান খোশনবীশ। তিনি বলেন, আমার ছেলে ছোট বেলা থেকেই মেধাবী। তার এই ফলাফলে আমিসহ আমার পরিবার আনন্দিত।

উল্লেখ্য, এর আগে রবিবার (১১ফেব্রুয়ারি) সরকারি-বেসরকারি মেডিকেল কলেজে ২০২৩-২৪ শিক্ষাবর্ষে এমবিবিএস প্রথম বর্ষের ভর্তি পরীক্ষার ফল প্রকাশিত হয়েছে। স্বাস্থ্য অধিদফতরের সভাকক্ষে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে পরীক্ষার ফল ঘোষণা করেন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণমন্ত্রী অধ্যাপক ডা. সামন্ত লাল সেন। এ বছর ২০২৩-২৪ শিক্ষাবর্ষে মেডিকেলের প্রথম বর্ষে ভর্তি পরীক্ষায় অংশ নিয়েছিলেন ১ লাখ ২ হাজার ৩৬৯ জন।

সর্বশেষ আপডেটঃ ১৩. ফেব্রুয়ারী ২০২৪ ০২:৫৭:এএম ২ সপ্তাহ আগে
টাঙ্গাইলে নিখোঁজের ১৭ দিন পর প্রবাসীর মরদেহ উদ্ধার - Ekotar Kantho

টাঙ্গাইলে নিখোঁজের ১৭ দিন পর প্রবাসীর মরদেহ উদ্ধার

একতার কণ্ঠঃ টাঙ্গাইলে নিখোঁজের ১৭ দিন পর মকবুল হোসেন নামে এক প্রবাসীর মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

সোমবার (১২ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে কালিহাতী উপজেলার পারখী এলাকার একটি বিলে পুঁতে রাখা অবস্থায় প্রবাসীর মরদেহটি উদ্ধার করা হয়।

নিহত মকবুল হোসেন কালিহাতী উপজেলার পারখী এলাকার কিসলু মিয়ার ছেলে।

এ বিষয়ে কালিহাতী থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মনিরুজ্জামান শেখ জানান, প্রবাসী মকবুল গত আড়াই মাস আগে দেশে আসেন। দেশে আসার পর মকবুলকে তার নিজ বাড়িতে থাকতে না দেওয়ায় শ্বশুরবাড়ি সখীপুরে বসবাস শুরু করেন। গত ২৬ জানুয়ারি মকবুল বাড়ি থেকে বের হওয়ার পর থেকে তাকে খুঁঁজে পাওয়া যাচ্ছিল না।

তিনি আরও জানান, খুঁজে না পেয়ে তার শ্বশুরবাড়ি থেকে সখীপুর থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করা হয়। সোমবার দুপুরে স্থানীয় লোকজন পারখী এলাকার একটি বিলে পুঁতে রাখা অবস্থায় এক ব্যক্তির মরদেহ দেখতে পেয়ে পুলিশে খবর দেয়। পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে মরদেহটি উদ্ধার করার পর স্বজনরা মকবুল হোসেনকে সনাক্ত করে।

তিনি জানান, পুলিশ মরদেহটি ময়নাতদন্তের জন্য টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে।

সর্বশেষ আপডেটঃ ১৩. ফেব্রুয়ারী ২০২৪ ০২:৫২:এএম ২ সপ্তাহ আগে
টাঙ্গাইলে বর্ণাঢ্য আয়োজনে জাতীয় সাংবাদিক সংস্থার ৪২তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন - Ekotar Kantho

টাঙ্গাইলে বর্ণাঢ্য আয়োজনে জাতীয় সাংবাদিক সংস্থার ৪২তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন

একতার কণ্ঠঃ বর্ণাঢ্য আয়োজনে টাঙ্গাইলে জাতীয় সাংবাদিক সংস্থার (জেএসএস) ৪২তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদযাপন করা হয়েছে। বর্ণাঢ্য র‍্যালি, আলোচনা সভা ও কেক কাটার মধ্যে দিয়ে দিনটি উদযাপন করা হয়।

সোমবার (১২ ফেব্রুয়ারি) সকালে শহরের হাউজিং এস্টেট থেকে একটি বর্ণাঢ্য র‍্যালি বের করা হয়। র‍্যালিটি শহরের গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে পুনরায় হাউজিং এস্টেটে অবস্থিত জাতীয় সাংবাদিক সংস্থা টাঙ্গাইল জেলা ইউনিটের কার্যালয়ে গিয়ে শেষ হয়। পরে দিনটি উপলক্ষে জাতীয় সাংবাদিক সংস্থা টাঙ্গাইল জেলা ইউনিটের কার্যালয়ে এক আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়।

জাতীয় সাংবাদিক সংস্থা টাঙ্গাইল জেলা ইউনিটের সভাপতি মাসুদুর রহমান মিলনের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন টাঙ্গাইলের সিনিয়র তথ্য অফিসার তাসলিমা জান্নাত। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সাপ্তাহিক লোকধারা পত্রিকার সম্পাদক এনামুল হক দীনা।

জাতীয় সাংবাদিক সংস্থা টাঙ্গাইল জেলা ইউনিটের যুগ্ন-সাধারন সম্পাদক মো. আরমান কবীর সৈকতের সঞ্চালনায় আলোচনা সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন, সহ-সভাপতি আবুল কালাম সিদ্দিকী নিপু, সাধারণ সম্পাদক তাইজুল ইসলাম টুটুল, সাংগঠনিক সম্পাদক সৈয়দ নাজমুল হাসান, যুগ্ম সাংগঠনিক সম্পাদক সবুজ সরকার, অর্থ-সম্পাদক আব্দুল মোতালেব, মানবাধিকার সম্পাদক উজ্জ্বল মিয়া, সহ-দপ্তর সম্পাদক সাগর আহম্মেদ, যুগ্ম আইন বিষয়ক সম্পাদক মোহাম্মদ রমজান আলী, সহ-ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক শুভ সাহা, সহ-ক্রীড়া সম্পাদক সাহান হাসান, কার্যকরী সদস্য খায়রুল ইসলাম, মাসুম, রেজাউল সহ জেলা ও উপজেলায় কর্মরত বিভিন্ন ইলেকট্রনিক্স ও প্রিন্ট মিডিয়ার সাংবাদিকবৃন্দ।

পরে কেক কাটার মধ্যে দিয়ে অনুষ্ঠানের সভাপতি মাছুদুর রহমান মিলন দিনের কর্মসূচির সমাপ্তি ঘোষণা করেন।

উল্লেখ্য, প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে বুধবার (১৪ ফেব্রুয়ারি) জাতীয় সাংবাদিক সংস্থার আয়োজনে হাউজিং এস্টেটে অবস্থিত টাঙ্গাইল জেলা ইউনিটের কার্যালয়ে এক পিঠা উৎসবের আয়োজন করা হবে।

সর্বশেষ আপডেটঃ ১৩. ফেব্রুয়ারী ২০২৪ ০৩:০০:এএম ২ সপ্তাহ আগে
সরকারি সা’দত কলেজের বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত - Ekotar Kantho

সরকারি সা’দত কলেজের বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত

একতার কণ্ঠঃ দীর্ঘদিন পর টাঙ্গাইলের করটিয়া সরকারি সা’দত কলেজে বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়েছে। রবিবার (১১ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে করটিয়া সরকারি সা’দত কলেজ প্রাঙ্গণে ওই কলেজের উদ্যোগে এই ক্রীড়া প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়।

এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন টাঙ্গাইল-৫ (সদর) আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব ছানোয়ার হোসেন।

করটিয়া সরকারি সা’দত কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর সুব্রত নন্দীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শাহজাহান আনছারী, সরকারি সা’দত কলেজের উপাধ্যক্ষ প্রফেসর সুলতান আহম্মেদ, শিক্ষক পরিষদের সম্পাদক মোস্তাফিজুর রহমান, বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতার আহবায়ক প্রফেসর শফিকুল ইসলাম ভূঁইঞা প্রমুখ।

এসময় ক্রীড়া প্রতিযোগিতা পরিচালনা করেন পদার্থ বিজ্ঞান বিভাগের বিভাগীয় প্রধান সাব্বির হাসান পল, অধ্যাপক ইমরুল কায়েস, ক্রীড়া শিক্ষক আব্দুস সাত্তার।

সা’দত কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর সুব্রত নন্দীর প্রচেষ্টায় দীর্ঘদিন পর সরকারি সা’দত কলেজে বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হওয়াতে কলেজের শিক্ষক-শিক্ষিকা ও ছাত্র-ছাত্রীবৃন্দরা আনন্দিত।

১৮টি ইভেন্টে এ প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়। পরে অতিথিরা বিজয়ীদের হাতে পুরস্কার তুলে দেন।

সর্বশেষ আপডেটঃ ১২. ফেব্রুয়ারী ২০২৪ ০২:৪৮:এএম ২ সপ্তাহ আগে
প্রধানমন্ত্রীর কাছে টাঙ্গাইল শাড়ির জিআই সনদ হস্তান্তর - Ekotar Kantho

প্রধানমন্ত্রীর কাছে টাঙ্গাইল শাড়ির জিআই সনদ হস্তান্তর

একতার কণ্ঠঃ টাঙ্গাইল শাড়িসহ সদ্য নিবন্ধিত তিনটি পণ্যের ভৌগোলিক নির্দেশক (জিআই) সনদ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

রবিবার (১১ ফেব্রুয়ারি) সকালে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে মন্ত্রিসভার বৈঠকের আগে পণ্য তিনটির সনদ হস্তান্তর করেন শিল্পমন্ত্রী নূরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ূন। সকাল ১০টায় বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

বৈঠকের শুরুতেই শিল্প মন্ত্রণালয়ের নকশা ও ট্রেডমার্ক বিভাগের টাঙ্গাইল শাড়ি, নরসিংদীর অমৃত সাগর কলা এবং গোপালগঞ্জের রসগোল্লার জিআই সার্টিফিকেট এবং টাঙ্গাইলের শাড়ি প্রধানমন্ত্রীর কাছে হস্তান্তর করেন শিল্পমন্ত্রী।

শিল্পমন্ত্রী ও শিল্প মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব জাকিয়া সুলতানা সনদের সঙ্গে একটি টাঙ্গাইল শাড়িও প্রধানমন্ত্রীর হাতে তুলে দেন।

নতুন তিনটি পণ্যসহ বাংলাদেশের মোট ২২টি পণ্য জিআই সনদ পেল।

আগে নিবন্ধিত পণ্যগুলো হলো- জামদানি শাড়ি, বাংলাদেশের ইলিশ, চাঁপাইনবাবগঞ্জের খিরসাপাতি আম, বিজয়পুরের সাদা মাটি, দিনাজপুরের কাটারিভোগ, বাংলাদেশের কালোজিরা, রংপুরের শতরঞ্জি, রাজশাহীর সিল্ক, ঢাকার মসলিন, বাংলাদেশের বাগদা চিংড়ি, রাজশাহী ও চাঁপাইনবাবগঞ্জের ফজলি আম, বাংলাদেশের শীতলপাটি, বগুড়ার দই, শেরপুরের তুলসীমালা, চাঁপাইনবাবগঞ্জের ল্যাংড়া আম, চাঁপাইনবাবগঞ্জের আশ্বিনা আম, বাংলাদেশের ব্ল্যাক বেঙ্গল ছাগল, নাটোরের কাঁচাগোল্লা, টাঙ্গাইলের পোড়াবাড়ির চমচম, কুষ্টিয়ার তিলের খাজা ও কুমিল্লার রসমালাই।

সর্বশেষ আপডেটঃ ১২. ফেব্রুয়ারী ২০২৪ ০২:৫৯:এএম ২ সপ্তাহ আগে
মার্শাল আর্টে স্বর্ণপদক জয়ী টাঙ্গাইলের হাফিজুরকে আর্থিক সহযোগিতা প্রদান - Ekotar Kantho

মার্শাল আর্টে স্বর্ণপদক জয়ী টাঙ্গাইলের হাফিজুরকে আর্থিক সহযোগিতা প্রদান

একতার কণ্ঠঃ মিক্সড মার্শাল আর্ট প্রতিযোগিতায় স্বর্ণপদক জয়ী টাঙ্গাইলের মো. হাফিজুর রহমানকে আর্থিক সহযোগিতা করলেন জেলা প্রশাসক মো. কায়ছারুল ইসলাম।

রবিবার (১১ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে নিজ কার্যালয়ে বিজয়ীর হাতে উপহারটি তুলে দেন জেলা প্রশাসক।

স্বর্ণপদক জয়ী মো. হাফিজুর রহমান টাঙ্গাইলের ধনবাড়ি উপজেলার পানকাতরা গ্রামের মো. আমির আলীর ছেলে। সে ধনবাড়ি সরকারি কলেজের এইচ.এস.সি (মানবিক বিভাগ) এর দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র।

সম্প্রতি হাফিজুর ঢাকার মিরপুর স্টেডিয়ামে রয়েল বেঙ্গল ফাইটিং চ্যাম্পিয়শীপ প্রতিযোগিতায় স্বর্ণপদক জয় এবং শেখ কামাল স্মৃতি মার্শাল আর্ট প্রতিযোগিতা ও হাবিব’স এম এম এ একাডেমি ক্লাব ফাইটিং চ্যাম্পিয়নশীপ প্রতিযোগিতায় মিক্সড মার্শাল আর্টে স্বর্ণপদক জয় করেন। ঢাকায় উচ্চতর প্রশিক্ষণের জন্য জেলা প্রশাসক মো. কায়ছারুল ইসলাম হাফিজুরকে এই আর্থিক সহযোগিতা দিলেন।

সর্বশেষ আপডেটঃ ১২. ফেব্রুয়ারী ২০২৪ ০১:১৮:এএম ২ সপ্তাহ আগে
অবশেষে সেই স্কুল শিক্ষিকা শিলাকে কারণ দর্শানোর নোটিশ - Ekotar Kantho

অবশেষে সেই স্কুল শিক্ষিকা শিলাকে কারণ দর্শানোর নোটিশ

একতার কণ্ঠঃ টানা ছয় মাস অনুপস্থিত স্কুল শিক্ষিকা জেবুন নাহার শিলাকে অবশেষে কারণ দর্শানোর নোটিশ দেওয়া হয়েছে। বৃহস্পতিবার (৮ ফেব্রুয়ারি) টাঙ্গাইল জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা সুব্রত কুমার বণিক ওই শিক্ষককে কারণ দর্শানোর নোটিশ প্রদান করেন।

নোটিশে আগামী ৭ কর্মদিবসের মধ্যে সংশ্লিষ্ট কার্যালয়ে কারণ দর্শাতে বলা হয়েছে।

নোটিশে বলা হয়েছে, জেবুন নাহার শিলা গত বছরের ১০ জুলাই থেকে ৯ অক্টোবর পর্যন্ত তিন মাসের চিকিৎসা ছুটিতে ছিলেন। একই বছরের ১০ অক্টোবর থেকে চলতি বছরের ৯ জানুয়ারি পর্যন্ত পুনরায় তিন মাসের চিকিৎসা ছুটির আবেদন করেন। নিয়ম অনুযায়ী, স্বাস্থ্যগত কারণে তিন মাসের অধিক ছুটির ক্ষেত্রে মেডিকেল বোর্ডের সনদ প্রয়োজন। মেডিকেল বোর্ডের সনদের জন্য ওই শিক্ষকের আবেদনপত্র টাঙ্গাইল সিভিল সার্জন কার্যালয়ে পাঠানো হয়। এর পরিপ্রেক্ষিতে ওই শিক্ষককে বিগত সময়ের চিকিৎসকের ব্যবস্থাপত্র ও কাগজপত্র মেডিকেল বোর্ডে পাঠাতে চিঠি দেয় সিভিল সার্জন কার্যালয়। কিন্তু প্রয়োজনীয় কাগজপত্র জমা না দিয়ে বোর্ডে অনুপস্থিত রয়েছেন শিক্ষক জেবুন নাহার শিলা।

এরআগে সখীপুর ইউএনওর নির্দেশে গত ১৬ ও ২৯ জানুয়ারি উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা ওই শিক্ষককে কারণ দর্শানোর নোটিশ দেন।

এ বিষয়ে শুক্রবার (৯ ফেব্রুয়ারি) টাঙ্গাইল জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা সুব্রত কুমার বণিক জানান, ওই শিক্ষকের চিকিৎসা ছুটির আবেদন জেলা সিভিল সার্জন কার্যালয়ে পাঠানো হয়। কিন্তু মেডিকেল বোর্ড প্রয়োজনীয় কাগজপত্র চাইলে জমা দেননি শিক্ষক শিলা। ফলে ওই শিক্ষক চিকিৎসা ছুটি পাননি। এ কারণে সিভিল সার্জন কার্যালয় কাগজপত্র ফেরত পাঠিয়েছে। বৃহস্পতিবার তাঁকে কারণ দর্শানোর নোটিশ পাঠানো হয়েছে। তাঁর বিরুদ্ধে বিভাগীয় মামলার প্রক্রিয়া শুরু হচ্ছে।

উল্লেখ্য, জেবুন নাহার শিলা ২০২৩ সালের ২৪ জানুয়ারি সখীপুর উপজেলার পশ্চিম কালিদাস পানাউল্লা পাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সহকারী শিক্ষক পদে যোগদান করেন। তিনি ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য ও ইডেন মহিলা কলেজ ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি।

সর্বশেষ আপডেটঃ ১১. ফেব্রুয়ারী ২০২৪ ০২:২৪:এএম ২ সপ্তাহ আগে
টাঙ্গাইলে ফজরের নামাজ পড়ে বাড়ি ফেরা হলো না বজলুর রশিদের - Ekotar Kantho

টাঙ্গাইলে ফজরের নামাজ পড়ে বাড়ি ফেরা হলো না বজলুর রশিদের

একতার কণ্ঠঃ টাঙ্গাইলের ঘাটাইলে মসজিদে ফজরের নামাজ পড়ে বাড়ি ফেরার পথে সড়ক দুর্ঘটনায় বজলুর রশিদ (৬০) নামে এক ব্যবসায়ী নিহত হওয়ার ঘটনা ঘটেছে।

বৃহস্পতিবার (৮ ফেব্রুয়ারি) ভোরে টাঙ্গাইল-ময়মনসিংহ মহাসড়কের উপজেলার আঠারদানা এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

স্থানীয় দিগড় ইউপি চেয়ারম্যান ফারুক হোসেন ফনি বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

নিহত বজলুর রশিদ উপজেলার দিগড় ইউনিয়নের আঠারদানা দক্ষিনপাড়া এলাকার মৃত আমীর উদ্দিনের ছেলে। তিনি রাইস মিলের ব্যবসা করতনে।

স্থানীয়রা জানান, তিনি প্রতিদিন ভোরে বাড়ি থেকে একা বের হয়ে মসজিদে জামায়াতে নামাজ আদায় করতেন। বৃহস্পতিবার ফজরের নামাজ পড়ে বাড়ি ফেরার পথে টাঙ্গাইল-ময়মনসিংহ মহাসড়কের উপজেলার আঠারদানা এলাকায় পৌঁছালে পেছন দিক থেকে যাত্রীবাহী একটি অটোভ্যান তাকে চাপা দেয় । এতে তার মাথা ফেটে যায় এবং গুরুতর আহত হন। পরে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে প্রথমে নিকটবর্তী কালিহাতী উপজেলা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সে নিয়ে যায়।

সেখানে তার প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে পাঠায়। জেনারেল হাসপাতালে তার অবস্থার আরও অবনতি ঘটলে তার পরিবার তাকে ঢাকার একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করে। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বৃহস্পতিবার বিকেল ৩টায় তিনি মৃত্যুবরণ করেন।

ঘাটাইল উপজেলার দিগড় ইউপি চেয়ারম্যান ফারুক হোসেন ফনি জানান, মসজিদে নামাজে পড়তে যাওয়ার পথে এভাবে সড়ক দুর্ঘটনায় ব্যবসায়ী বজলুর রশিদের মৃত্যুর ঘটনায় এলাকায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

সর্বশেষ আপডেটঃ ০৯. ফেব্রুয়ারী ২০২৪ ০২:১৪:এএম ২ সপ্তাহ আগে
টাঙ্গাইলে কাগমারী সম্মেলনের ৬৭ বছর উদযাপন - Ekotar Kantho

টাঙ্গাইলে কাগমারী সম্মেলনের ৬৭ বছর উদযাপন

একতার কণ্ঠঃ টাঙ্গাইলে মজলুম জননেতা মওলানা আব্দুল হামিদ খান ভাসানীর ঐতিহাসিক কাগমারী সম্মেলনের ৬৭ বছর উদযাপন করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার (৮ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে টাঙ্গাইল সাধারণ গ্রন্থাগার মিলনায়তনে মওলানা ভাসানী ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

এতে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন মওলানা ভাসানী ফাউন্ডেশনের উপদেষ্টা বীর মুক্তিযোদ্ধা কবি বুলবুল খান মাহবুব।

মওলানা ভাসানী ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান খন্দকার নাজিম উদ্দিনের সভাপতিত্বে ও মহাসচিব মাহমুদুল হক সানুর সঞ্চালনায় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ন্যাপের কেন্দ্রীয় নেতা ডা. আবু আসলাম মিন্টু, জাতীয় গণতান্ত্রিক ফ্রন্ট নেতা আবুল কাশেম প্রমুখ।

অনুষ্ঠানে ভাসানী ফাউন্ডেশনের ছাত্র, যুব ও সাংস্কৃতিক নেতা-কর্মীসহ নানা শ্রেণি-পেশার লোকজন অংশগ্রহণ করেন।

উল্লেখ্য, কাগমারী সম্মেলন ১৯৫৭ সালে অনুষ্ঠিত একটি বিশেষ তাৎপর্য জাতীয় সম্মেলন। যা পরবর্তীতে স্বাধীন বাংলাদেশের অভ্যুদয়ে বিশেষ ইঙ্গিতবহ ভূমিকা রেখেছিল। ১৯৫৭ সালের ৬ থেকে ১০ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত টাঙ্গাইল জেলার কাগমারীতে মওলানা ভাসানীর নেতৃত্বে ওই সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।

সর্বশেষ আপডেটঃ ০৯. ফেব্রুয়ারী ২০২৪ ০২:৩৪:এএম ২ সপ্তাহ আগে
টাঙ্গাইলে ট্রাকচাপায় মোটরসাইকেল আরোহী নিহত - Ekotar Kantho

টাঙ্গাইলে ট্রাকচাপায় মোটরসাইকেল আরোহী নিহত

একতার কণ্ঠঃ টাঙ্গাইলে ট্রাকচাপায় এক মোটরসাইকেল আরোহী নিহতের ঘটনা ঘটেছে।

বৃহস্পতিবার (৮ ফেব্রুয়ারি) সকাল ৯টার দিকে টাঙ্গাইল-আরিচা আঞ্চলিক সড়কের শহরের কাগমারী কলেজ মোড়ে এ দুর্ঘটনা ঘটে। এই ঘটনায় আহত হয়েছেন মোটরসাইকেল আরোহী আরও একজন।

নিহতের নাম রুকুনুজ্জামান (৩৫)। সে রাজশাহীর বাঘা উপজেলার মীরগঞ্জের আখতারুলের ছেলে। সে সিটি গ্রুপের সেলস অফিসার হিসেবে কর্মরত ছিল বলেও জানা গেছে।

আহতের নাম হুমায়ূন রশীদ(৪০)। সে কুষ্টিয়া জেলার কুমারখালী উপজেলার বাবাদী গ্রামের রওশন আলীর ছেলে। সে বর্তমানে টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

টাঙ্গাইল সদর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. লোকমান হোসেন জানান, বৃহস্পতিবার সকালে সিলেট থেকে নাগরপুরগামী বালু ভর্তি একটি ট্রাক ঘটনাস্থলে পৌঁছে বিপরীত দিক থেকে আসা একটি মোটরসাইকেলকে চাপা দেয়। এতে ঘটনাস্থলেই মোটরসাইকেল আরোহী নিহত হন। এই ঘটনায় আহত হয় আরও একজন। এসময় স্থানীয় লোকজন ট্রাক ও এর চালককে আটক করে।

তিনি আরও জানান, খবর পেয়ে পুলিশ মরদেহটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠায়। ময়না তদন্তের পর লাশ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হবে।

সর্বশেষ আপডেটঃ ০৮. ফেব্রুয়ারী ২০২৪ ০৭:০১:পিএম ২ সপ্তাহ আগে
কপিরাইট © ২০২২ একতার কণ্ঠ এর সকল স্বত্ব সংরক্ষিত। এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি ।