কালিহাতীতে ইউপি নির্বাচনী সহিংসতায় প্রধান শিক্ষককে কুপিয়ে আহত


০৯:২৫ পিএম, ১৩ জুলাই ২০২৩
কালিহাতীতে ইউপি নির্বাচনী সহিংসতায় প্রধান শিক্ষককে কুপিয়ে আহত - Ekotar Kantho
আহত প্রধান শিক্ষক আরিফুর রহমান লিটন

একতার কণ্ঠঃ টাঙ্গাইলের কালিহাতীতে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে সহিংসতায় স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান পদপ্রার্থীর সমর্থক এক প্রধান শিক্ষককে কুপিয়ে গুরুতর আহত করার অভিযোগ উঠেছে নৌকা পার্থীর কর্মী সমর্থকদের বিরুদ্ধে। এ ছাড়াও ওই স্বতন্ত্র প্রার্থীর নির্বাচনী প্রচারনা অফিস ও গাড়ী ভাংচুর করে প্রচারনায় বাঁধা দেওয়ার ঘটনা ঘটেছে।

বুধবার (১২ জুলাই ) সন্ধ্যায় উপজেলার বীরবাসিন্দা ইউনিয়নের কস্তুরী পাড়া জামে মসজিদের সামনে ও বৃহস্পতিবার (১৩ জুলাই ) দুপুরে রাজাফৈর বাজার এলাকায় এ ঘটনা দুটি ঘটে।

এ ঘটনায় গুরুতর আহত আরিফুর রহমান লিটন (৫০) কস্তুরী পাড়া গ্রামের মজিবর সিকদারের ছেলে। তিনি কস্তুরী পাড়া আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক হিসাবে কর্মরত রয়েছেন।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, উপজেলার বীরবাসিন্দা ইউপি নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থী সোহরাব হোসেনের (মটরসাইকেল প্রতীক) প্রধান নির্বাচনী সমন্বয়ক হিসাবে দায়িত্ব পালন করছেন আরিফুর রহমান লিটন। তিনি বুধবার স্থানীয় কস্তুরী পাড়া বাজার এলাকায় দিনব্যাপী নির্বাচনী প্রচারনায় অংশ নেন। এক পর্যায়ে মাগরিবের নামাজের সময় হলে পাশের একটি মসজিদে নামাজ আদায় করেন। নামাজ শেষে মসজিদ থেকে বের হয়ে তিনি বাজারের আবুখার ওষুধের দোকানের সামনে আসলে পূর্ব থেকে উৎপেতে থাকা ১০ থেকে ১৫ জন সন্ত্রাসী তাকে কুপিয়ে ও পিটিয়ে গুরুতর আহত করে। এ সময় স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করে। সেখানে তার অবস্থার অবনতি হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার্ড করে।

এ বিষয়ে প্রত্যক্ষদর্শী মো. হান্নান, আকরব হোসেন, আব্দুল হাই বলেন, আমরা বাজারে নির্বাচনী প্রচারনা চালাচ্ছিলাম। অতর্কিত ভাবে বাজারের উত্তর দিক থেকে এসে অজ্ঞাত ১০/১৫ জন নৌকার সমর্থকরা লিটন মাষ্টারের মাথায় কোপ দিলে তিনি মাটিতে লুটিয়ে পড়েন। পরে তাকে এলোপাথারি কুপিয়ে ও পিটিয়ে রক্তাক্ত জখম করে। এ সময় তারা বলেন, শালা নৌকার বিরুদ্ধে নির্বাচন করার পরিনতি। তার ডাক চিকৎকারে স্থানীয় লোকজন এগিয়ে আসলে সন্ত্রাসীরা পালিয়ে যায়।

অন্যদিকে, বৃহস্পতিবার দুপুরে মাইক নিয়ে একটি ব্যটারি চালিত অটোরিকশা যোগে মোটরসাইকেল প্রতিকের প্রচারনা চালানোকালে কয়েকজন সন্ত্রাসী হামলা চালিয়ে গাড়ি ও মাইক ভাংচুর করে।

স্বতন্ত্রপ্রার্থী সোহরাব আলী বলেন, এ ঘটনায় আমি জেলা নির্বাচন অফিসার বরাবর লিখিত অভিযোগ করেছি। তিনি আমাকে নিরেপেক্ষ নির্বাচনের আশ্বাস দিয়েছেন।

বীরবাসিন্দা ইউনিয়নের নৌকা প্রতিকের প্রার্থী মো. আব্দুল খালেক মুঠোফোনে বলেন, ‘আমি নির্বাচনী প্রচারনায় ব্যস্ত রয়েছি, লিটন মাষ্টারের উপর হামলার বিষয়ে আমি পরে কথা বলবো’।

এ বিষয়ে জানতে কালিহাতী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোল্লা আজিজুর রহমানকে বার বার ফোন দিলেও তিনি ফোন রিসিভ করেনটি।

এ প্রসঙ্গে কালিহাতী সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার মো. শরিফুল হক বলেন, সামনে আমাদের জাতীয় নির্বাচন। আমরা যে কোন নির্বাচনী সহিংসতাকে খুব গুরুত্ব দিয়ে দেখছি। তবে এ বিষয়ে এখনো কেউ কোন প্রকার লিখিত অভিযোগ করেননি।


নিউজটি শেয়ার করুন

কপিরাইট © ২০২২ একতার কণ্ঠ এর সকল স্বত্ব সংরক্ষিত। এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি ।