টাঙ্গাইলে ট্রেনের ধাক্কায় আহত শিশুটি এখন ঢাকা মেডিক্যালে - Ekotar Kantho

টাঙ্গাইলে ট্রেনের ধাক্কায় আহত শিশুটি এখন ঢাকা মেডিক্যালে

একতার কণ্ঠঃ টাঙ্গাইলের ভূঞাপুরে ট্রেনের ধাক্কায় গুরুতর আহত শিশুটির পরিচয় মিলেছে। শিশুটির নাম তাওহীদ। সে পশ্চিম ভূঞাপুর গ্রামের লাল মিয়ার ছেলে।

বুধবার (১১ জানুয়ারি) মায়ের সাথে ব্যাটারিচালিত অটোরিকশায় মামার বাড়ি মোমিনপুর গ্রামে যাচ্ছিলো। ট্রেনের ধাক্কায় অটোরিকশার তিন আরোহী মারা যান। নিহতদের মধ্যে শিশু তাওহীদের মা নার্গিস বেগম (২৫) রয়েছেন।

বৃহস্পতিবার (১২ জানুয়ারি) ভোরে আহত তাওহীদকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে তার চিকিৎসার ব্যয় বহন করা হবে।

এরআগে অজ্ঞাত শিশু হিসেবে তাওহীদকে টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। মাথায় আঘাত পাওয়া তাওহীদকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় পাঠানোর পরামর্শ দেন চিকিৎসকরা। কিন্তু তার কোনো স্বজন না থাকায় ঢাকায় নেওয়া যাচ্ছিলো না। রাতে তাওহীদের পরিচয় পাওয়া যায়। তার চাচা তারা মিয়া রাত ১২ টার দিকে ঢাকার নিউরো সায়েন্স হাসপাতালের উদ্দেশ্যে রওনা হন।

তারা মিয়া বৃহস্পতিবার সকালে জানান, নিউরো সায়েন্স হাসপাতালে পরীক্ষা নিরিক্ষার পর চিকিৎসকরা ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পরামর্শ দেন। পরে ভোর চার টার দিকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

এ দিকে শিশু তাওহীদকে টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে বুধবার রাতে জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মো. ওলিউজ্জামান ও ডেপুটি নেজারত কালেক্টর (এনডিসি) মো. খায়রুল ইসলাম দেখতে যান। খায়রুল ইসলাম জানান শিশু তাওহীদের চিকিৎসার ব্যয় জেলা প্রশাসন বহন করবে।

এ দিকে বৃহস্পতিবার সকালে ভূঞাপুরের মোমিনপুর গ্রামে তাওহীদের মা নার্গিস বেগমের দাফন সম্পন্ন হয়েছে। দাফনের পর তাওহীদের বাবা লাল মিয়া ঢাকার উদ্দেশ্যে রওনা হয়েছেন।

সর্বশেষ আপডেটঃ ২০২৩-০১-১৩ ১২:৩৬:৫১ ২ সপ্তাহ আগে
টাঙ্গাইলে আট বছর পর যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত আসামি আটক - Ekotar Kantho

টাঙ্গাইলে আট বছর পর যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত আসামি আটক

একতার কণ্ঠঃ টাঙ্গাইলে প্রায় আট বছর পর হত্যা মামলার যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত এক আসামিকে আটক করেছে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়নের (র‌্যাব) সদস্যরা।

শুক্রবার (১৩ জানুয়ারি) সকালে গাজীপুরের কালিয়াকৈর উপজেলার সূত্রাপুর এলাকা থেকে তাকে আটক করা হয়।

আটক ওই আসামির নাম নুরু (৬৫)। তিনি টাঙ্গাইলের বাসাইল উপজেলার কাঞ্চনপুর ইউনিয়নের সাকনাইর চর গ্রামের মৃত আব্দুল আলী ঠাণ্ডুর ছেলে।

র‌্যাব-১৪ এর ৩ নম্বর কোম্পানি কমান্ডার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার রফিউদ্দীন মোহাম্মদ যোবায়ের জানান, ১৯৯৪ সালের মির্জাপুর উপজেলার একটি হত্যা মামলায় নুরু আসামি ছিলেন। ওই মামলায় ২০১৫ সালের ১৫ অক্টোবর টাঙ্গাইল অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ দ্বিতীয় আদালতে তার যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের আদেশ হয়।

ওই মামলার বিচার চলাকালীন সময় থেকেই আসামি নুরু পলাতক ছিলেন।
র‌্যাব জানায়, নুরু কালিয়াকৈরের সূত্রাপুর এলাকায় নিজেকে নাজমুল নামে পরিচয় দিতেন। গোপন তথ্যের ভিত্তিতে তাকে আটক করা হয় এবং জিজ্ঞাসাবাদে তিনি নিজের প্রকৃত পরিচয় নুরু বলে জানান। তাকে বাসাইল থানা পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

সর্বশেষ আপডেটঃ ২০২৩-০১-১৪ ০১:২৩:১৮ ৩ সপ্তাহ আগে
কপিরাইট © ২০২২ একতার কণ্ঠ এর সকল স্বত্ব সংরক্ষিত। এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি ।